পাক-ভারত সংঘর্ষে ২ কাশ্মীরি নিহত

অন্যান্য

এম চোখ ডেস্ক: জাতিসংঘের সাধারণ পরিষধের অধিবেশনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আগুন ছড়ানো ভাষণ রাখার পর প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে। বিতর্কিত জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যের সীমান্তে ফের দু পক্ষের সেনাদের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। ভারতীয় সেনাদের হামলায় আজাদ কাশ্মীরের কমপক্ষে দুই বেসামরিক নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইসলামাবাদ। আহত হয়েছেন আরো তিনজন।

অন্যদিকে পাকিস্তানি হামলায় এক কিশোরসহ ছয়জন আহত হওয়ার অভিযোগ করেছে নয়াদিল্লি।

রোববার এক পাকিস্তানের ইন্টার সার্ভিস পাবলিক রিলেশন্সের বরাত দিয়ে স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যম জানায়, নিয়ন্ত্রণ রেখোয় ভারতীয় সেনাদের হামলায় আজাদ কাশ্মীরের দুই বেসামরিক নিহত হয়েছেন। নিহতদের একজন হলেন সালামাত বিবি (৬০) এবং অন্যজন ১৩ বছরের কিশোর জেশান আয়ুব।

ভারতীয় সেনাদের ওই হামলায় দুই নারীসহ আরো তিন বোসমরিক নাগরিক আহত হয়েছেন।

অন্যদিকে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের অভিযোগ, শনিবারের পর রোববারও পাকিস্তান সেনার কাশ্মীরে হামলা চালিয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের পুঞ্চ জেলায় পাকিস্তানি সেনাদের মর্টার হামলায় তিন নারীসহ ছয় কাশ্মীরি গুরুতর আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ১২ বছরের একটি কিশোরও রয়েছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে পিটিআই জানায়, রোববার স্থানীয় সময় বেলা ৩.১৫ মিনিট থেকে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর শেলিং ও গুলি ছুঁড়তে থাকে পাক সেনারা। পালটা জবাব দেয় ভারতীয় সেনাও।

শুক্রবার জাতিসংঘের ৭৪তম সাধারণ অধিবেশনে কাশ্মীর ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ দেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। অনেকে তার এই ভাষণকে ‘ঐতিহাসিক’ বলে অঅখ্রায়িত করেছেন। তার এই আগুন ঝরা বক্তব্যের পর শনিবার রাতে কারফিউ উপেক্ষা করে রাস্তায় নেমে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের শত শত মানুষ। তারা স্বাধীনতার পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। এর পরই সেখানে আরো কঠোর নিরাপত্তা আরোপ করেছে মোদি সরকার

সূত্র: দুনিয়া নিউজ/ কলকাতা টুয়েন্টি ফোর