এসআই নজরুলের কাণ্ড ॥ ছেলেকে ছাড়তে বাবার কাছে লাখ টাকা দাবি!

আইন ও আদালত, আমাদের মেহেরপুর, ছবি, বাংলাদেশ

এম চোখ ডট কম, গাংনী:
ছেলেকে ছেড়ে দিতে পিতার কাছে এক লক্ষ টাকা দাবি করেছেন মেহেরপুরের ধলা পুলিশ ক্যাম্পের এসআই নজরুল ইসলাম। অসহায় পিতা টাকা দিতে ব্যার্থ হওয়ায় ছেলেকে ছিনতাই মামলায় আদালতে সোপর্দ করেছেন অভিযুক্ত এসআই। এমন অভিযোগ করে সদর উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের আব্দুল বারি সাংবাদিকদের মাধ্যমে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।
এদিক শুধু ঘুষ চাওয়ার বিষয়টি নয় এসআই নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যোগসাজস ও ভয় ভীতি দেখিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায়েরও অভিযোগ রয়েছে।
অভিযোগে জানা গেছে, সদর উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের মিলনকে (৩০) সোমবার সকালে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে গাংনী উপজেলার ধলা পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ নজরুল ইসলাম ও সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা। এসময় মিলনের চোখ বেঁধে পুলিশ ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়ার সময় গ্রেফতারের কারণ জানতে চান তার পিতা আব্দুল বারি। উত্তরে তাদেরকে ক্যাম্পে আসার কথা বলে মিলন নিয়ে চলে যান এসআই।
মিলনের পিতা আব্দুল বারি জানান, ক্যাম্পে গেলে ছেলেকে ছেড়ে দেওয়ার বিনিময়ে এক লাখ টাকা দাবি করেন এসআই নজরুল ইসলাম। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে এসআই নজরুল মিলনকে ছিনতাইকারী হিসেবে কোর্টে চালান দেয়ার ভয় দেখায়। কোন উপায় না পেয়ে শেষ পর্যন্ত সাংবাদিকদের মাধ্যমে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নজরে আনার চেষ্টা করা হয়।
এ ব্যাপারে এসআই নজরুলের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি কি কারণে মিলনকে গ্রেপ্তার করেছেন তা জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। সেই সাথে মিলনের পিতার কাছে টাকা চাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, অনেকে অনেক কথা বলবে তাতে কান দিলে চলে না।
গাংনী থানার ওসি বজলুর রহমান জানান, গেল জানুয়ারী মাসে একটি মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। ইতোমধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক মিলনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বিষয়টি গোচরে আনলে মেহেরপুর পুলিশ সুপার রাফিউল আলম জানান, গ্রেপ্তারের বিষয়টি তিনি জানেন না। কি কারণে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং টাকা চাওয়ার বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবেন।